• শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:৫৩ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনামঃ
পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা পিরোজপুরে অগ্নিকান্ডে পাঁচটি বসত ঘর ভষ্মিভূত পিরোজপুরে অতুলনীয় হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) বইয়ের মোড়ক উন্মোচন পিরোজপুরে মানুষিক ভারসম্যহীন ও ভবঘুরে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ পিরোজপুর প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক সাজ্জাদ কে বদলীজনিত বিদায়ী সংবর্ধনা পিরোজপুরে যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন করায় আসামী গ্রেফতারের দাবীতে সদর উপজেলা যুবলীগের সংবাদ সম্মেলন : মামলা গ্রেফতার-১ গণমাধ্যমের সঙ্গে কোনো দূরত্ব থাকবে না: সেনাপ্রধান জেলা শিল্পকলা একাডেমীর পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক সাজ্জাদ কে বদলীজনিত বিদায়ী সংবর্ধনা পিরোজপুরে ক্যান্সার, কিডনী, সিরোসিস ও স্ট্রোকজনিত রোগাক্রান্ত চেক এবং জেলেদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন বঙ্গবন্ধুর আদর্শে শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে পরিচালনা করছেন … আলহাজ্ব এ কে এম এ আউয়াল

দুদকের করা পৃথক ২ মামলায় মেয়র দম্পত্তিকে দুদক তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল পর্যন্ত জামিন দিয়েছে আদালত : জনসমূদ্রে পিরোজপুর

admin / ৫৫ জন দেখেছেন
প্রকাশের সময়ঃ সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও পৌরমেয়র হাবিবুর রহমান মালেক ও তার স্ত্রী নীলী রহমানের নামে দুদকের করা দুটি মামলার শুনানী শেষে দুদক তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল পর্যন্ত জামিন দিয়েছে সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালত। আজ সোমবার দুপুরে দুদকের করা দুটি মামলার শুনানীর জন্য সিনিয়র স্পেশাল জজ মোহা: মুহিদুজ্জামানের আদালতে পৌরমেয়র হাবিবুর রহমান মালেক ও তার স্ত্রী নীলী রহমানের হাজির হলে দুদক তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল পর্যন্ত জামিন দিয়েছে আদালত।

এদিকে জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও পিরোজপুর পৌরসভার মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক ও তার স্ত্রী নীলী রহমানের আদালতে হাজির হওয়াকে কেন্দ্র করে পিরোজপুর শহরে ও আদালত এলাকায় কয়েক স্তরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে প্রশাসন। সকাল ১০টায় মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক ও তার স্ত্রী নীলী রহমানের আদালতে আদালত চত্তরে আসার সাথে সাথে আদালত এলাকা জন সমূদ্রে রুপ নেয়। পুলিশ আদালত চত্তরে আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ছাড়া অন্য কাউকে ডুকতে না দিলেও আদালতের সামনের রাস্তা থেকে শুরু করে সিও অফিস বঙ্গবন্ধু চত্তর হয়ে শহর পর্যন্ত মানুষের ঢল ছিলো চোখে পড়ার মত। আদালতের সামনে থেকে শহর পর্যন্ত জনসমূদ্রে রুপ নেয়। কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা না ঘটে তাই সকাল থেকেই শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ, আর্ম পুলিশ ও র‌্যাব সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের দ¦ারা নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়া হয়েছে আদালত ও এর আশেপাশের এলাকা। ২০২১ সালের ২৮ মার্চ উচ্চ আদালত থেকে জামিন নেয় মেয়র দম্পত্তি। করোনা সংঙ্কটের কারনে চলতি বছরের ১৮ এপ্রিল ২ সপ্তাহ, ০২ মে ২ সপ্তাহ, দুই দফায় ৮ সপ্তাহ এবং পরে ১ মাস করে ২ বার জামিন বর্ধিত করে উচ্চ আদালত।

পৌরমেয়রের আইনজীবী এ্যাডভোকেট দেলোয়ার হোসেন জানান, সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালত নথি পর্যলোচনা করে হাইকোর্ট ডিভিশনের প্রাথমিক দৃষ্টিতে এজাহার আসামীর পক্ষে থাকায় এবং দুদকের তদন্ত কর্মকর্তার মামলার বিষয়ে কোন অগ্রগতি না থাকায় দুদক তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল পর্যন্ত জামিন দিয়েছে সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালত। এসময় এ্যাড. এম এ হাকিম হাওলাদার, এ্যাড. আহসানুল কবির বাদল, এ্যাড. কানাই লাল বিশ^াস, এ্যাড. মানস বৈরাগী পৌরমেয়রের পক্ষের আইনজীবী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

জানাগেছ, পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক ও তার স্ত্রী নিলা রহমান সহ ২৮ জনের বিরুদ্ধে গত ১৮ মার্চ পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এর একটিতে পৌরমেয়র ও তার স্ত্রী আর অন্যটিতে মেয়র সহ পৌর সভার ২৭ কর্মকর্তা কর্মচারীদের অভিযুক্ত করা হয়েছে। দুদকের সমন্বিত কার্যালয় বরিশালে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপ-পরিচালক আলী আকবর বাদী হয়ে মামলা দু’টি দায়ের করেন। এর একটি মেয়র মালেক ও তার স্ত্রী নিলা রহমানকে অভিযুক্ত করে জ্ঞাত আয় বর্হিভুত ৩৬ কোটি ৩৪ লাখ ৭ হাজার ৯৩২টাকার সম্পদ আর অন্যটিতে মেয়র মালেক ও পিরোজপুর পৌর সভার কাউন্সিলর আব্দুস সালাম বাতেন সহ পৌরসভার মোট ২৭ জনের বিরুদ্ধে পৌরসভার একটি নিয়োগে অবৈধভাবে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করেন দুদক।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও পৌরমেয়র হাবিবুর রহমান মালেক বলেন, ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দেয়া হয়েছে আমাদের। পৌরসভার যে নিয়গে অভিযুক্ত করা হয়েছে সেখানে নিয়োগ বোর্ডের সদস্যরা ছিলো আমি একা কিছু করিনি। ২০১৮ সালে দুদক তদন্ত করে এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রদিবেদন দিয়েছে আমি নির্দোষ। জামাত বিএনপি জোট সরকারের আমলে নির্যাতনের স্বীকার হয়েছি ১/১১ সময় দির্ঘদিন জেল খেটেছি আর এখন আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকা কালীন সময়ে আজও মমলা নির্যতনের স্বীকার হইতেছি।

উল্লেখ্য, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপপরিচালক আলী আকবর এর আগে গত ২৭ ডিসেম্বর কমিশন তার সম্পদের বিবরনী চেয়ে তাকে, স্ত্রী মিসেস নিলা রহমান, কন্যা ও পুত্রের নাম উল্লেখ করে তাদের জ্ঞাত সম্পদের হিসাব ও তথ্য বিবরনী চেয়ে একটি নোটিশ প্রদান করেন। এ ছাড়া একই সাথে পৌরসভার ২৫ জন কর্মচারী নিয়োগে প্রতিজনের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা করে ঘুষ গ্রহন, বাস ও মিনিবাস থেকে অবৈধ চাঁদা আদায়, এলাকায় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ঠিকাদারী করার অভিযোগ করে এ নোটিশ প্রদান করা হয়। ওই নোটিশের যথাযথ উত্তর না পাওয়ায় পরে কমিশন তাকে (উপপরিচালক আলী আকবর ) এ বিষয়ে অনুসন্ধানের জন্য দায়িত্ব দেন। দীর্ঘ অনুসন্ধান শেষে পৃথক দু’টি মমালা দায়ের করে দুদক।

 


একই ধরনের আরও খবর
error: Content is protected !!
error: Content is protected !!