• শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৫৩ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনামঃ
পিরোজপুর জেলা দাবা লীগের পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত পিরোজপুর অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড মেইন রোড শাখা কর্তৃক “প্রবাসীর ঘরে ফেরা ঋণ বিতরণ” বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ভিত্তিক বই পড়া প্রতিযোগীতা এবং পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে শিশুদের মৌলিক শিক্ষার উদ্দেশ্যে ” শেখ রাসেল পাঠশালা “উদ্বোধন পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন উপলক্ষে সুশাসন প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে অংশীজনের অংশ গ্রহন সভা অনুষ্ঠিত পিরোজপুরে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত পিরোজপুরে নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে শেখ রাসেল দিবস পালিত পিরোজপুর মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন এর আয়োজনে শতাধিক রোগীদের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প পিরোজপুরে শূন্য থেকে সফল উদ্যোক্তা এম এ মুন্না

পিরোজপুরে ইউপি নির্বাচন শেষ মুহূর্তের প্রচারণায়ও বিদ্রোহীদের চাপে কোনঠাসা নৌকার প্রার্থীরা

admin / ৮৭ জন দেখেছেন
প্রকাশের সময়ঃ শুক্রবার, ১৮ জুন, ২০২১

২১ জুন প্রথম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় বিদ্রহী প্রার্থীদের চাপের মুখে হিমশিম খাচ্ছে নৌকা প্রতিকের প্রার্থীরা। প্রচার প্রচারনার শেষের দিকেও ভোটারদেও বাড়িতে যে যার মত ভোট চাইতে ব্যাস্ত থাকলেও নৌকার প্রার্থীরা যেনো একটু বেশিই চাপ অনুভব করছেন বিদ্রহী প্রার্থীদেও বলে অভিযোগ করেছেন একাধিক নৌকার প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা।

পিরোজপুর জেলার ৭ টি উপজেলাতেই চলছে প্রথম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৩২টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এতে ৫ লক্ষ ৭৭৬ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। তবে এবারের নির্বাচন যেনো পিরোজপুরের জন্য একটু আলাদাই হচ্ছে। সারাদেশে নৌকার প্রার্থীরা সুন্দর ও সুষ্ঠভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহন করলেও পিরোজপুরে নৌকার প্রায় সকল উপজেলার প্রার্থীরাই চাপের মুখে থাকার অভিযোগ করে যাচ্ছে।

ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি জায়গায় ঘটেছে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর নির্বাচনী অফিস ভাংচুর, অগ্নিসংযোগের ঘটনা। শুক্রবার ভোর রাতে সদর উপজেলার শারিকতলা ইউনিয়নে নৌকার প্রোর্থী আজমীর হোসেন মাঝির নির্বাচনী অফিস ভাংচুর, অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এসময় ওই অফিসে থাকা তার নির্বাচনী কয়েক শতাধিক পোষ্টার, ব্যানার, লিফলেট এবং বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার বাধানো ছবি পুড়ে যায় বলে তিনি অভিযোগ করেন। সন্দেহের তীর তিনি প্রতিপক্ষ বিদ্রোহী প্রার্থী রাজু মেল্লার দিকে তুললেও রাজু মোল্লা তা অস্বীকার করেন। কয়েকদিন ধরেই সদর উপজেলার কদমতলা ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী হানিফ খান অভিযোগ করেন তার কর্মী সমর্থকরা নৌকার প্রচারনা চালাতে গেলে বিদ্রহী প্রার্থী শিহাব সেখ এর লোকজন বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি করছে। বিভিন্ন সময়ে সংঘর্ষে একাধিক কর্মী সমর্থকরা আহত হয়েছে এবং মামলাও হয়েছে একাধিক । তবে এবিষয়ে বিদ্রহী প্রার্থী শিহাব সেখ পাল্টা হামলার অভিযোগ করেছেন নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে।

এছাড়া নাজিরপুর উপজেলায় সদর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশারেফ হোসেন খান। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোশারেফ হোসেন খান কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সভাপতি সম্পাদক বরাবরে একটি খোলা চিঠি লিখতে বাধ্য হন বলে তিনি জানান। খোলা চিঠিতে তিনি অভিযোগ করেন উপজেলা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিদ্রোহী প্রার্থী চঞ্চল কান্তি বিশ্বাস এর নির্দেশে উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক ও যুগ্ম আহবায়ক প্রকাশ্যে নৌকার বিরোধিতা করছে। তিনি এর প্রতিকার চান। এ ঘটনায় বিদ্রোহী প্রার্থী চঞ্চল কান্তি বিশ্বাস তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সম্পূর্ন অস্বীকার করেছেন।

এছাড়াও নেছারাবাদের জলাবাড়ি ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী আশিষ বড়াল অভিযোগ করেন রাতে তার নির্বাচনী অফিসে ভাংচুড় এর ঘটনা ঘটে। তিনিও বিদ্রহী প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন।

নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীদের অভিযোগ আওয়ামী লীগের এক পক্ষ এবারের নির্বাচনে বিদ্রোহীদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। তাদের অনুসারী স্থানীয় যুবলীগ, স্বেচ্ছসেবক লীগ, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও বিদ্রোহীদের পক্ষে কাজ করছে। ফলে সাধারণ ভোটারদের মাঝে এর নেতিবাচক প্রভাব পরছে। এসব বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রন করতে না পারায় সুবিধা পাবে জামায়াত ও বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা বলে অভিযোগ নৌকার প্রার্থীদের।

এ বিষয়ে পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এম এ হাকিম হাওলাদার জানান, জেলা আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীরা সর্বোচ্চভাবে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের সাথে কাজ করে যাচ্ছে। তবে বিদ্রোহীদের বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগ কোন প্রকার সহায়তা করছে না। দলীয় পদধারী যে সকল নেতারা নৌকার বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

পিরোজপুরের পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান জানান, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পিরোজপুরে আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখতে জেলা পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। জেলাতে কোন বড় ধরনের সংর্ঘসের ঘটনা ঘটেনি এর একমাত্র কারন হচ্ছে প্রতিরোধ মূলক ব্যবস্থা গ্রহন। প্রায় সকল ইউনিয়নেই পুলিশ সংঘর্স এড়াতে প্রতিরোধ মূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। যেখানেই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ছোট খাট ঝামেলা হচ্ছে সাথে সাথেই সেখানে পুলিশ পাঠানো হচ্ছে। দল মত নির্বেশেষে পুলিশ মাঠে থেকে কাজ করে যাচ্ছে।

 


একই ধরনের আরও খবর
error: Content is protected !!
error: Content is protected !!