• শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৪৭ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনামঃ
পিরোজপুর জেলা দাবা লীগের পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত পিরোজপুর অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড মেইন রোড শাখা কর্তৃক “প্রবাসীর ঘরে ফেরা ঋণ বিতরণ” বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ভিত্তিক বই পড়া প্রতিযোগীতা এবং পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে শিশুদের মৌলিক শিক্ষার উদ্দেশ্যে ” শেখ রাসেল পাঠশালা “উদ্বোধন পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন উপলক্ষে সুশাসন প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে অংশীজনের অংশ গ্রহন সভা অনুষ্ঠিত পিরোজপুরে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত পিরোজপুরে নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে শেখ রাসেল দিবস পালিত পিরোজপুর মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন এর আয়োজনে শতাধিক রোগীদের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প পিরোজপুরে শূন্য থেকে সফল উদ্যোক্তা এম এ মুন্না

শারি সংস্থার অব্যবস্থাপনা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ : মাসের পর মাস ধরে বেতন বন্ধ কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের

admin / ২৩৯ জন দেখেছেন
প্রকাশের সময়ঃ শনিবার, ৬ মার্চ, ২০২১
শারি সংস্থার অব্যবস্থাপনা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ : মাসের পর মাস ধরে বেতন বন্ধ কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের

দেশের দলিত জনগোষ্ঠীরে উন্নয়নে কাজ করার প্রত্যয় নিয়ে প্রতিষ্ঠিত বেসরকারী সংস্থা শারি’র কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা মাসের পর মাস বেতন বঞ্চিত হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। আর এ ব্যাপারে সংস্থার সাবেক নির্বাহী প্রধান প্রিয়া সাহার অবর্তমানে যারা দায়িত্বপ্রাপ্ত আছেন তাদের একগুয়েমী, অর্থ আত্মসাতের হীণ প্রচেষ্টা এবং কর্মীদেরকে বঞ্চিত রাখার প্রয়াসে এই অপকর্ম চালানো হচ্ছে দেদারছে।
জানা গেছে, ২০১৯ সালের ১৯ জুলাই শারি সংস্থার তৎকালীন নির্বাহী প্রধান প্রিয়া সাহা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোলাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশ বিরোধী নালিশ করার পর থেকে আর দেশে আসতে পারেননি। তার অবর্তমানে সংস্থার হাল ধরেন তথাকথিত কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ৮৬ বছরোর্ধ ড. এম গুল হোসাইন। যিনি শুধুমাত্র নামকাওয়াস্তে সংস্থার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী প্রধান বনে যান। তাকে সমানে রেখে সংস্থার অর্থ বিভাগের প্রধান প্রদীপ দাস, প্রিয়া সাহার স্বামী দুদক কর্মকর্তা মলয় সাহা এবং প্রিয়া সাহার আপন ছোট বোন প্রিতীলতা বিশ্বাস অর্থের যাবতীয় দায়িত্ব হাতে নেন। এরই অংশ হিসেবে তারা বিভিন্ন সময় আসা অনুদান থেকে বেশির ভাগ টাকাই ব্যক্তিগত হিসাবে সরিয়ে ফেলেন। এমনকি এর একটা বিরাট অংশ আমেরিকায় প্রিয়া সাহার কাছেও পাঠানো হয় বলে জানা গেছে।
এদিকে এই অনভিপ্রেত কাজ কর্ম চালানোর ফলে গত বছরের অক্টোবর মাস থেকে সংস্থার শতাধিক কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বেতন বঞ্চিত হয়ে পড়ে। সংস্থার জন্য প্রাপ্ত অনুদান হাতে পাওয়া যায়নি, অনুদান আসলেও ব্যাংকে জমা হয়নি, এনজিও ব্যুরো অর্থ ছাড়ের অনুমাদন দেয়নি ইত্যাদি অজুহাতে কর্মীদের বঞ্চিত রাখা হচ্ছে। ফলে এই সংস্থার শতাধিক কর্মী মানবেতর জীবন যাপন করছেন। পরবর্তী সময় বৃদ্ধ ড. গুল হোসেনকে দিয়ে যখন নিজেদের কাজ হাসিল করা সম্ভব হচ্ছিল না, ঠিক সেই মুহুর্তে কোন কারণ দর্শানো ছাড়াই তাকে অব্যাহতি দিয়ে প্রিয়া সাহার আপন বড় ভাই সাবেক উপ-সচিব জগদীশ চন্দ্র বিশ্বাসের স্ত্রী শক্তিময়ী হীরাকে সংস্থার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক বানানো হয়। যদিও সংস্থার সকল কার্যক্রম চলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী হিসেবে আত্মগোপনে থাকা প্রিয়া সাহার নির্দেশনা অনুযায়ীই।
এদিকে সারা বিশ্বে করোনা শুরু হওয়ার পরে যখন মাঠ পর্যায়ে কোন কাজ করা সম্ভব হচ্ছিল না, ঠিক তখনই ত্রাণ সহযোগিতা দেয়ার চিন্তা চেতনা থেকে জার্মানভিত্তিক দাতা সংস্থা মিজেরিয়র জার্মান শারি’র কর্ম এলাকা খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট ও পিরোজপুরে ত্রাণ সহযোগিতার জন্য অর্থ পাঠায়। যা মাঠ পর্যায়ে কোন উপকারভোগীর হাতেই পৌঁছায়নি। জানা গেছে, প্রিয়া সাহার আপন ছোট বোন প্রীতিলতা বিশ্বাস এবং প্রকল্পের সমন্বয়কারী বিষ্ণুপদ দাস এর সহযোগিতায় সেই অর্থ পুরোটাই আত্মসাত করা হয়েছে। এদিকে আরও জানা গেছে, ১৮ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক সংখ্যালঘু অধিকার দিবস পালনের জন্য দাতা সংস্থা থেকে প্রতি জেলার জন্য ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। কিন্তু প্রকল্প সমন্বয়কারী অর্থ বিভাগের সহায়তায় নামমাত্র টাকা খরচ করে বাকী টাকার পুরোটাই আত্মসাত করেছে। চলতি বছরও একই কায়দায় আত্মসাতের পরিকল্পনা করা হয়েছে। ভূয়া বিল ভাউচার তৈরি করে এই সকল অর্থ আত্মসাতের মূল হোতা শারি’র অর্থ বিভাগ, প্রিয়া সাহার আপন ছোট বোন প্রীতিলতা বিশ্বাস, বড় ভাইর স্ত্রী শক্তিময়ী হীরাসহ প্রকল্পের অন্যান্য কর্মকর্তারা। এ সকল বিষয়ে প্রতিবাদ করায় সংস্থার প্রোগ্রাম সমন্বয়কারী জগদীশ চন্দ্র সানাকে চাকরী থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। সংস্থার উপ নির্বাহী পরিচালক রবীন্দ্র লাল বড়ুয়াকে নির্বাহী পরিচালক করার কথা থাকলেও আত্মসাতের কাজকর্মে রাজী না হওয়ায় তাকেও অব্যাহতি দেয়ার পায়তারা চালাচ্ছে।
শারি সংস্থার একটি পত্রিকা এবং অন লাইন দলিত কন্ঠ প্রিয়া সাহার নামে প্রকাশক ও সম্পাদক থাকলেও তিনি আমেরিকায় আত্মগোপন থাকায় তা অবৈধ হওয়ার পরেও বর্তমানে সেটি প্রকাশ করে যাচ্ছে।
এ ব্যাপারে সংস্থার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক শক্তিময়ী হীরার সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি জানান, সংস্থার বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ করা হয়েছে তা সম্পূর্ন মিথ্যা এবং বানোয়াট। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বর্তমানে কোন বেতন-ভাতা বকেয়া নেই। তবে মাঝে এনজিও ব্যুরো অর্থ ছাড় না করায় কয়েক মাস কিছুটা সমস্যা হয়েছিল মাত্র। তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন প্রকল্পে দাতা সংস্থা থেকে যে অনুদান দেওয়া হয় তা যথাযথভাবে ব্যয় করা হচ্ছে। কোন অর্থ আত্মসাতের ঘটনা ঘটেনি।
এদিকে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সংস্থার বর্তমান ও সাবেক বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা জানান, জোড়ালো তদন্ত হলে সংস্থাটির নানা অনিয়মের ‘থলের বিড়াল’ বের হয়ে যাবে। তারা এ বিষয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছেন।


একই ধরনের আরও খবর
error: Content is protected !!
error: Content is protected !!