• বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৩৫ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনামঃ
পিরোজপুর জেলা দাবা লীগের পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত পিরোজপুর অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড মেইন রোড শাখা কর্তৃক “প্রবাসীর ঘরে ফেরা ঋণ বিতরণ” বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ভিত্তিক বই পড়া প্রতিযোগীতা এবং পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে শিশুদের মৌলিক শিক্ষার উদ্দেশ্যে ” শেখ রাসেল পাঠশালা “উদ্বোধন পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন উপলক্ষে সুশাসন প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে অংশীজনের অংশ গ্রহন সভা অনুষ্ঠিত পিরোজপুরে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত পিরোজপুরে নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে শেখ রাসেল দিবস পালিত পিরোজপুর মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন এর আয়োজনে শতাধিক রোগীদের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প পিরোজপুরে শূন্য থেকে সফল উদ্যোক্তা এম এ মুন্না

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় সরকার বদ্ধপরিকর : শ. ম. রেজাউল করিম

admin / ৪৫৫ জন দেখেছেন
প্রকাশের সময়ঃ রবিবার, ১৬ আগস্ট, ২০২০
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় সরকার বদ্ধপরিকর : শ. ম. রেজাউল করিম

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম বলেছেন, বাংলাদেশকে সোনার বাংলা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করাই ছিল বঙ্গবন্ধুর আজীবন লালিত স্বপ্ন। তাঁর স্বপ্ন সুখী, সমৃদ্ধ আধুনিক ও অসম্প্রায়িক বাংলাদেশ বির্নিমানে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর।

আজ রবিবার বিকেলে নেছারাবাদ (স্বরূপকাঠী) উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের একটি স্বাধীন দেশ উপহার দিয়েছেন। আত্মনির্ভরশীল জাতি হিসেবে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখিয়েছেন। নির্যাতিত মানুষের অধিকার প্রাতষ্ঠায় তিনি ছিলেন নিবেদিত প্রাণ। তিনি বেঁচে থাকলে অনেক আগেই সুখী সমৃদ্ধ সোনার বাংলার কাঙ্খিত গন্তব্যে পৌঁছে যেত দেশ। সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠাকে প্রতিহত এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস করতে ষড়যন্ত্রকারীরা ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার বাধাগ্রস্থ করতে শত্রুবাহিনী নানাভাবে অব্যাহত চেষ্টা করে আসছিল।

কিন্তু বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার করেছেন। তারা বাংলাদেশ থেকে জাতির পিতার নাম মুছে ফেলতে চেয়েছিলো। কিন্তু বিশ্বে বাংলাদেশের নাম যতদিন থাকবে বঙ্গবন্ধুর নামও ততদিন থাকবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ, মানচিত্র, লাল-সবুজ পতাকা ও বঙ্গবন্ধুর নাম অবিচ্ছেদ্য।

মন্ত্রী আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা বির্নিমানে তার রক্তের ও আদর্শের যোগ্য উত্তরসুরি শেখ হাসিনা। তাঁর নেতৃত্বে বর্তমান সরকার মানুষের কল্যাণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোশারেফ হোসেনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন, পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুল হামিদ, পৌর মেয়র মো. গোলাম কবির, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এস এম ফুয়াদ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম মুইদুল ইসলাম।

এদিকে, রবিবার সকালে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস-২০২০ উপলক্ষে নাজিরপুর উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম এমপি।

এ সময় তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু সাদা মনের মানুষের ছিলেন, ত্যাগী মানুষ ছিলেন, মানুষের কল্যাণে নিজেকে উজাড় করে দেয়া মানুষ ছিলেন। তিনি বাঙালির অধিকারের প্রশ্নে কখনো আপোষ করেননি। তাই মনে বিশ্বাস করতে হবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ আর নেতৃত্ব শেখ হাসিনার।

মন্ত্রী আরও বলেন, শেখ হাসিনাকে অন্তত ১৯ বার হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। তবুও তিনি কিভাবে বাঙালির স্বার্থকতা আসবে, কিভাবে বাঙালির অর্থনৈতিক উন্নতি হবে, সমৃদ্ধি হবে, দারিদ্র্য থাকবে না, অনুন্নত অবস্থা থাকবে না, সে জন্য পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

শ. ম. রেজাউল করিম বলেন, শেখ হাসিনা ভালো থাকলে, বাংলাদেশ ভালো থাকবে। বাংলাদেশ ভালো থাকলে, আমরা ভালো থাকবো। আর তা না হলে আবার রাজাকার ও দুর্নীতিবাজরা আসবে, আবার সন্ত্রাস হবে, আবার টেন্ডারবাজী হবে। আমরা নিশ্চয়ই সেই অশান্তি আবার এ দেশে আসতে দিতে চাই না।

তিনি বলেন, পঁচাত্তর সালে আমরাই ক্ষমতায় ছিলাম। তবু ঘাতকরা বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে, নেতাদেরকে হত্যা করেছিলো। এই সময়েও যে ঘাতক বিভিন্ন জায়গায় নেই, একথা ভাবার কোনো কারণ নেই। ছদ্দবেশী, হাইব্রিড আর অতি উৎসাহীদের থেকে সতর্ক থাকতে হবে।

নাজিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন ও নাজিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অমূল্য রঞ্জন হালদার বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। অন্যান্যদের মধ্যে স্থানীয় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সভায় উপস্থিত ছিলেন।


একই ধরনের আরও খবর
error: Content is protected !!
error: Content is protected !!