1. uttoronhost@gmail.com : admin :
September 28, 2022, 7:24 pm
শিরোনাম
বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারতে হাজারো নেতা-কর্মী নিয়ে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রার্থী সালমা রহমান হ্যাপী পিরোজপুরে চতুর্থ পর্যায়ে টিসিবির পন্য বিক্রয় শুরু  জেলা পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত একমাত্র নারী প্রার্থী পিরোজপুরের সালমা রহমান হ্যাপী পিরোজপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলায় আওয়ামীলীগের হামলা ও মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে পিরোজপুর জেলা বিএনপি পিরোজপুরে দলীয় বোর্ডের কাছে মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন সালমা রহমান হেপী সহ ৫ জন পিরোজপুরে নৃত্যশিল্পী সংস্থার জেলা পর্যায়ে বাছাই ও সার্টিফিকেট বিতরণ স্বেচ্ছাসেবক দলের নবগঠিত কেন্দ্রিয় কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে মো: নাদিম সেখ ও রিয়াজ মাতুব্বরের নেতৃত্বে পিরোজপুরে আনন্দ মিছিল স্বেচ্ছাসেবক দলের নবগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটিকে শুভেচ্ছা জানিয়ে পিরোজপুরে আনন্দ মিছিল আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জে পুলিশের গুলিতে যুবদল নেতা শাওন প্রধান হত্যার প্রতিবাদে পিরোজপুরে যুবদলের মিছিল

পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে জায়গা না থাকায় মেঝেতে রোগীরা : পর্যাপ্ত ডাক্তার না থাকার অভিযোগ

  • আপডেটের সময়: মঙ্গলবার, জুন ২২, ২০২১
  • 156 টাইম ভিউ

পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে রোগীদের ভীষন চাপ থাকায় মেঝেতে জায়গা হচ্ছে না অসুস্থ্য রোগীদের। আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে জেলা হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে রোগীদের অনেক বেশি চাপে মেঝেতেও জায়গা পাচ্ছে না রোগীরা। ফলে বাধ্য হয়ে অনেক রোগী বারান্দায় পড়ে আছে। ১০০ শয্যা বিশিষ্ট্য হাসপাতালে বর্তমানে ১৩৩ রোগী বিভিন্ন ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন। ফলে রোগী নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তপক্ষ। হাসপাতালটিতে শুধু জায়গা সংঙ্কট নয় রয়ে পর্যাপ্ত চিকিৎসকের অভাব।

জেলা স্বাস্থ্যবিভাগের মতে ১৯৮১ সালে মহকুমা হাসপাতালটি ৫০ শয্যা নিয়ে যাত্রা শুরু করলেও পরবর্তীতে বিএনপি সরকারের আমলে সেটি ১০০ শয্যায় উন্নিত করা হয়। ২০২০ সালের প্রথম দিকে পিরোজপুর সদর হাসপাতাল থেকে জেলা হাসপাতালে রুপান্তর করা করে ২৫০ শয্যায় উন্নিত করা হয়। বর্তমানে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট্য হাসপাতালের কাজ চলমান থাকলেও মুল হাসপাতালে রোগীদের জন্য জায়গা দিতে পারছে না কতৃপক্ষ এবং নেই পর্যাপ্ত ডাক্তার। জেলা হাসপাতাল হিসেবে ৩২ জন ডাক্তার থাকার কথা থাকলেও মাত্র ১২ জন ডাক্তার দিয়ে কোন মতে চলছে জেলা হাসপাতাল। সদও উপজেলা স্বাস্থ্য কম্পেলেক্স থেকে ধার করে চলছে জেলা হাসপাতাল। এখানে নেই কোন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার। মেডিসিন, গাইনী ও ইনেস্তেশিয়ার মাত্র ৩ জন ডাক্তার দিয়েই কাজ চালিয়ে নেয়া হচ্ছে। যেখানে কমপক্ষে ২০ জন ডাক্তার থাকার কথা সেখানে সব মিলিয়ে রয়েছে মাত্র ১২ জন ডাক্তার। ফলে কয়েকজন ডাক্তার দিয়েই চালিয়ে নেয়া হচ্ছে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালের সকল কার্যক্রম।

জেলা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা জানান, করোনা মাহামরীর সময় পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে নেই বেড নেই ডাক্তার ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ রোগী ও স্বজনরা। দূও থেকে আসা অনেক গুরুত্বপূর্ণ রোগীদের জায়গা হচ্ছে না মেঝেতে। কোন মতে চিকিৎসা দিয়ে অনেককে রেফার করা হচ্ছে খুলনা ও বরিশালে। করোনা মহামারীর মধ্যে এটি আর একটি ভোগান্তির কারন হয়ে দাড়িয়েছে।

সিভিল সার্জন ডা: মো: হাসনাত ইউসুফ জাকী জানান, কয়েকদিন ধরে করোনা রোগীর চাপ বেশি রয়েছে। প্রতিদিনই প্রায় রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ডায়রিয়া, মেডিসিন, অপারেশন, গাইনী ও আহত রোগীদের সংখ্যা বৃদ্ধির কারনে হাসপাতালে জায়গার সংঙ্কট দেখা দিয়েছে। তবে সব সময় এমনটা হয় না মাঝে মধ্যে এমটা হলেও আমরা চিকিৎসা ব্যবস্থার কোন ত্রুটি করছিনা। করোনার কারনে একটু চাপ বেড়েছে আমাদের পর্যাপ্ত অক্সিজেন ও সেলাইন রয়েছে।

 

আপনার সামাজিক মিডিয়ায় এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো খবর
© 2022 Press Time 24 | All rights reserved
Theme Customized By Uttoron Host